সম্প্রতি নতুন সড়ক পরিবহন আইন বাস্তবায়নের প্রতিবাদে আজ সকালে থেকে খুলনা, যশোর, কুষ্টিয়া ও নড়াইলের অধিকাংশ রুটে বাস চলাচল বন্ধ করে দিয়েছে শ্রমিকরা। খুলনায় এই ধর্মঘট ট্রাকের খেত্রেও প্রযোজ্য বলে জানা গিয়েছে। 

সোমবার সকাল থেকে শুরু হওয়া এ ধর্মঘটে চরম ভোগান্তিতে পড়েছেন সাধারণ যাত্রীরা। খুলনার পরিবহন শ্রমিক নেতারা বলেছেন, দুর্ঘটনার মামলা জামিনযোগ্যসহ সড়ক আইনের কয়েকটি ধারা সংশোধন করতে হবে। এটা চালকরা দাবি করেছে। তাদের দাবি, আইন সংশোধনের পরই এটি যেন কার্যকর করা হয়। আর এটা কার্যকর করা না হলে এ কর্মসূচি চলবে। 

এদিকে গত ১৪ই নভেম্বর যশোরে অনুষ্ঠিত এক সমাবেশে সড়ক আইন ২০১৮ সংশোধনসহ ১০ দফার এক দাবি করা হয়। সেই দাবির প্রেক্ষিতে সকাল থেকে যশোরে প্রায় ১৮ রুটের শ্রমিকরা স্বেচ্ছায় কর্মবিরতি শুরু করেছেন। 

কুষ্টিয়া থেকেও বেশির ভাগ রুটে বাস চলাচল বন্ধ করে দিয়েছেন পরিবহন শ্রমিকেরা। ফলে  পূর্বঘোষণা ছাড়া এই ধর্মঘটে সাধারণ যাত্রীরা চরম ভোগান্তিতে পড়েছেন। খুলনা মোটর শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি মে. নুরুল ইসলাম জানিয়েছেন, নতুন সড়ক পরিবহন আইন কার্যকরের প্রতিবাদে শ্রমিকেরা গাড়ি চালাচ্ছেন না। তারা অনির্দিষ্টকালের জন্য এই কর্মবিরতি শুরু করেছেন। কুষ্টিয়ায় বাসশ্রমিকদের সংগঠন শ্রমিক ইউনিয়নের নেতারা বলছেন, অত্যন্ত কঠিন এই আইনে গাড়ি চালাবেন না চালকেরা। 

এদিকে আগের চেয়ে আরও কঠোর সাজা রেখে করা নতুন সড়ক পরিবহন আইন কার্যকরের প্রতিবাদে নড়াইলের সাথে দেশের অভ্যন্তরীণ প্রায় পাঁচটি রুটের গাড়ি চলাচল বন্ধ করেছে শ্রমিকরা। 

কোন ধরণের ঘোষণা ছাড়াই এই ধর্মঘটের কারণে সারাদেশে সাধারণ মানুষজন বেশ ভোগান্তিতে পড়েছে। 
তথ্যসূত্রঃ সময়ের খবর, দৈনিক যুগান্তর, প্রথম আলো, বিডিনিউজ২৪.কম

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।