অনেক বছর অপেক্ষার পর অবশেষে চুয়াডাঙ্গায় কেন্দ্রীয় ট্রাক টার্মিনাল তৈরি করা হবে। ট্রাক মালিক ও শ্রমিকদের দীর্ঘদিন ধরে আন্দোলন করার পরিপ্রেক্ষিতে ট্রাক টার্মিনাল উদ্বোধন হয়েছে এবং কাজ শুরু করা হয়েছে।

গত রবিবার চুয়াডাঙ্গা ও আলমডাঙ্গা প্রধান সড়কের সাথে অবস্থিত পশুহাট চত্বরে কেন্দ্রীয় ট্রাক টার্মিনালের উদ্বোধন করা হয়। চুয়াডাঙ্গার পৌর মেয়র ওবাইদুর রহমান চৌধুরী জিপু প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে কেন্দ্রীয় ট্রাক টার্মিনালের উদ্বোধন করেন।

চুয়াডাঙ্গা পৌরসভার ১ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর জাহাঙ্গীর আলম, ৪ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর জাহাঙ্গীর আলম মালিক খোকন, পৌরসভার সহকারী প্রকৌশলী হাফিজুর রহমান কাউছার, কনভারজেন্সি পরিদর্শক জুবায়ের রহমান, জেলা বাস-ট্রাক মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক টোকন জোয়ার্দ্দার উপস্থিত ছিলেন।

যত্রতত্র ট্রাক পার্কিং আর না

এছাড়াও চুয়াডাঙ্গা জেলা বাস-ট্রাক শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি এম জেনারেল ইসলাম, জেলা ট্রাক-ট্যাংকলির শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি আলমগীর হোসেন, সাধারণ সম্পাদক আরিফ শেখ, ট্রাক শ্রমিক নেতা শান্তি, মদন, জিল্লুর রহমানসহ স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তি ও শ্রমিক ইউনিয়নের সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

নতুন এই ট্রাক টার্মিনাল রাস্তায় আনবে শৃঙ্খলা। এটার উদ্বোধন প্রসঙ্গে পৌর মেয়র ওবাইদুর রহমান চৌধুরী জিপু বলেন, “কোন ট্রাক টার্মিনাল না থাকার কারণে রাস্তায় প্রচুর যানজট হত। ফলে সাধারণ মানুষকে চরম দুর্ভোগ পোহাতে হয়। তাই চুয়াডাঙ্গার সাধারণ মানুষ ও ট্রাক শ্রমিক ভাইদের কথা চিন্তা করেই এই ট্রাক টার্মিনালের ব্যবস্থা করা হয়েছে। ফলে চুয়াডাঙ্গার মানুষ এখন আগের চেয়ে শান্তিতে চলাচল করতে পারবে।”

তিনি আরও বলেন, “বর্তমান সরকার দেশের সব মানুষের কথা চিন্তা করে চুয়াডাঙ্গাসহ সারা দেশে ব্যাপক উন্নয়ন করছে। তাই উন্নয়নের এই ধারা অব্যাহত রাখা আমাদের সবার কর্তব্য।”

চুয়াডাঙ্গায় ট্রাক ড্রাইভার ও শ্রমিকদের বিশ্রাম নেওয়ার নির্দিষ্ট জায়গা নেই। অনেক সময় তাদের রাস্তায় দাড়িয়ে বিশ্রাম নিতে হয়। আর চোখে ঘুম নিয়ে গাড়ি চালালে সড়ক দুর্ঘটনার ঝুঁকিও বেড়ে যায়। তাই এই ট্রাক টার্মিনাল তাদের অনেক সাহায্য করবে বলে জানান, জেলা বাস-ট্রাক শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি এম জেনারেল ইসলাম। 

তথ্যসূত্রঃ দৈনিক সময়ের সমীকরণ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।