দেশের অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধির সাথে লজিস্টিকস সেবা জড়িয়ে আছে। আমাদের স্থল ও সমুদ্র বন্দর থেকে প্রতিনিয়ত নানা ধরণের পণ্য সমগ্র দেশে ছড়িয়ে পড়ছে। অন্যদিকে বিভিন্ন ধরণের পণ্য আমারা বিশ্বব্যাপী রপ্তানিও করছি। আর এই পণ্য পরিবহনের মূল চালিকাশক্তি হচ্ছে ট্রাক।

পণ্য পরিবহনের জন্য ট্রাক ভাড়ার সনাতন পদ্ধতি বেশ সময়সাপেক্ষও যা লজিস্টিকস ম্যানেজমেন্টের স্বাভাবিক গতি ব্যাহত করে। তবে আশার কথা হচ্ছে, বিগত কয়েক বছরে আমাদের দেশের লজিস্টিকস সেবা ডিজিটাল হয়েছে এবং অ্যাপের মাধ্যমে ট্রাক ভাড়া করা যাচ্ছে। 

বর্তমানে আমাদের দেশে যে কয়টি অনলাইন প্ল্যাটফর্ম থেকে ট্রাক ভাড়া করা যায় তার মধ্যে অন্যতম জিম ডিজিটাল ট্রাক। জিমে বাংলাদেশে প্রচলিত সকল ধরণের ট্রাক ভাড়া পাওয়া যায়। জিম ২০১৮ সালে বাংলাদেশে তাদের কার্যক্রম শুরু করে এবং খুব দ্রুত সমগ্র দেশজুড়ে তাদের সার্ভিস নিশ্চিত করে।  

জিমের প্ল্যাটফর্মে ছোট-বড় সব মিলিয়ে ১১ হাজারের বেশি রেজিস্টার্ড ট্রাক আছে। ১ লক্ষের বেশি পরিবহন ক্ষমতা নিয়ে জিম, সারাদেশে প্রায় দুই শতাধিক রুটে পণ্য পরিবহন করছে। কর্পোরেট প্রয়োজনে ও মাসব্যাপী সরকারি-বেসরকারি বড় প্রজেক্টে জিম সফলভাবে ট্রাক সরবরাহ নিশ্চিত করেছে। আর তাই জিমের কাজ করছে দেশের শীর্ষস্থানীয় বেশকিছু প্রতিষ্ঠান। লাফার্জ হোলসিম বাংলাদেশ লিমিটেড, সেভেন রিংস সিমেন্ট, প্রান, এসিআই লিমিটেড, বাংলাদেশ এডিবল অয়েল লিমিটেড, শাহ সিমেন্ট, তিলোত্তমা, রয়েল সিমেন্ট ও অন্যান্য বেশকিছু শিল্প প্রতিষ্ঠান বর্তমানে জিমের সাথে কাজ করছে।

সেবার মান ঠিক রেখে সমগ্র দেশজুড়ে ভারী পণ্য পরিবহনে নির্ভরযোগ্য একটি প্ল্যাটফর্মে পরিণত হয়েছে জিম। তাই দেশের যে প্রান্তেই আপনার লজিস্টিকস অপারেশন চলুক না কেন, জিম আছে আপনার পাশে।    

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।