পার্শ্ববর্তী দেশ ভারতের পেট্রাপোল বন্দরে প্রিন্টার বিকল হয়ে যাওয়ায় বেনাপোল বন্দর দিয়ে টানা তৃতীয় দিনের মত পণ্য আমদানি বন্ধ রয়েছে।

বন্দর কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, প্রিন্টার বিকল হয়ে যাওয়ায় ভারতের পেট্রাপোল বন্দরে অসংখ্য ট্রাক আটকে আছে। ফলে বেনাপোল বন্দর দিয়ে আমদানি স্থবির হয়ে পড়েছে। তবে বন্দরের অন্যান্য কার্যক্রম এবং আন্তর্জাতিক চেকপোস্ট দিয়ে যাত্রী পারাপার স্বাভাবিক রয়েছে বলে বন্দর কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে।

শবিবার সকাল থেকে শুরু হওয়া এই জটিলতা এখনও বিরাজমান তবে বাংলাদেশ থেকে রপ্তানি পণ্যের চালান পেট্রাপোল বন্দর গ্রহণ করছে। 

সাধারণ সম্পাদক, ভারত পেট্রাপোলের ক্লিয়ারিং এজেন্ট স্টাফ ওয়েলফেয়ার অ্যাসোসিয়েশন; জনাব কার্তিক চক্রবর্তী  জানান, পেট্রাপোল বন্দরে আগে হাতে কলমে ও কাগজপত্রের মাধ্যমে আনুষ্ঠানিকতা করা হতো। বর্তমানে বন্দরে ‘অটোমেশন’ প্রক্রিয়া চালু হওয়ায় এই কাজ অনলাইনে করা হয়। পেট্রাপোল বন্দরে মূল কেন্দ্রীয় সার্ভারের সঙ্গে যুক্ত প্রিন্টারটি কাজ না করায় সবকিছু স্থবির হয়ে আছে। কাগজপত্রের জটিলতায় পণ্য খালাস করা ও বাংলাদেশে পণ্য রপ্তানি সংক্রান্ত সব কাজ বন্ধ হয়ে পড়েছে। 

এদিকে আরও জানা গেছে, আমদানি বন্ধ থাকায় বেনাপোল বন্দরে প্রবেশের অপেক্ষায় আছে কয়েক শত পণ্য বোঝাই ট্রাক। বেনাপোল বন্দরের আমদানি-রপ্তানিকারক সমিতির সহ-সভাপতি আমিনুল হক জানান, “এসব পণ্যের মাঝে শিল্প-কারখানায় ব্যবহৃত কাঁচামাল, খাদ্যদ্রব্য ও অনেক পচনশীল পণ্যও রয়েছে। ফলে দ্রুত পণ্য পরিবহন সচল না হলে ব্যবসায়ীরা প্রচুর লোকসানের মুখে পড়বেন।”  

তিনি আরও জানান, “পেট্রাপোল বন্দরে টেকনিশিয়ান কাজ শুরু করেছে বলে জানতে পারা গেছে। মেরামত করা শেষ হলে বন্দরে পুনরায় আমদানি-রপ্তানি শুরু হবে।” তবে এ পথে পাসপোর্ট যাত্রী পারাপার স্বাভাবিক রয়েছে বলে জানা গেছে। 

তথ্যসূত্রঃ বিডিনিউজ২৪.কম  

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।