আমাদের দেশে ট্রাক ভাড়া করার প্রক্রিয়া বেশ জটিল। আর কর্পোরেট প্রয়োজনে যখন একসাথে অনেক ট্রাক দরকার হয়, তখন একজন লজিস্টিকস ম্যানেজারকে সবচেয়ে বেশি ধকল পোহাতে হয়। একাধিক ট্রাক মালিক কিংবা ট্রান্সপোর্ট এজেন্সির সাথে যোগাযোগ করে ট্রাক ভাড়া নিশ্চিত করতে রীতিমত হিমশিম খেয়ে যেতে হয়।

এই ধরণের জটিলতা এড়াতে অনেকেই এখন অনলাইন প্ল্যাটফর্মগুলোর দিকে ঝুঁকছেন। আমাদের দেশে বর্তমানে অনলাইনে ট্রাক ভাড়া করার একটি জনপ্রিয় প্ল্যাটফর্ম জিম ডিজিটাল ট্রাক। আসুন দেখে নেই কেন একজন লজিস্টিকস ম্যানেজার জিম থেকে ট্রাক ভাড়া করবেন। 

সেরা রেটে ট্রাক ভাড়া সারাদেশে 

জিমে অনলাইন বিডিং সিস্টেম থাকার কারণে, একজন লজিস্টিকস ম্যানেজার একসাথে অনেক ট্রাক ভাড়া পাবেন বাজারের সেরা রেটে। এছাড়াও, জিমের সার্ভিস আছে সারাদেশ জুড়ে। ফলে জিম অ্যাপের মাধ্যমে ট্রাক ভাড়া পাওয়া যাবে সবখানে।   

ডেডিকেটেড কি অ্যাকাউন্ট ম্যানেজার

ধরুন, একজন লজিস্টিকস ম্যানেজার জিমের মাধ্যমে তিনটি ভিন্ন রুটে আলাদা প্রজেক্টে ট্রাক ভাড়া নিয়েছে। এই ক্ষেত্রে তাকে আলাদাভাবে কাউকে ফোন দিতে হবে না। জিমে আছে দক্ষ কি অ্যাকাউন্ট ম্যানেজার। একজন অ্যাকাউন্ট ম্যানেজারের মাধ্যমে তিনি সমস্ত যোগাযোগ নিশ্চিত করতে পারবেন।  

অগ্রিম শিডিউল

জিমে আছে ট্রিপ আগে থেকে শিডিউল করে রাখার ব্যবস্থা। প্রয়োজনে আগে থেকেই এক বা একাধিক ট্রিপ শিডিউল করে রাখা সম্ভব। জিমে সর্বোচ্চ ৯০ দিন আগে থেকে ট্রিপ শিডিউল করে রাখা যায়। 

ট্রিপ মনিটরিং সিস্টেম 

জিমে কর্পোরেট সার্ভিসের জন্য ড্যাশবোর্ড মনিটরিং সুবিধা আছে। ফলে একজন লজিস্টিকস ম্যানেজার খুব সহজেই তার পণ্যের আপডেট যে কোন সময় নিতে পারবেন।

পেমেন্ট সুবিধা 

জিমের একজন কর্পোরেট কাস্টমারকে প্রতিটি ট্রিপের জন্য আলাদাভাবে পেমেন্ট করতে হবে না। নির্দিষ্ট সময় পর পর পেমেন্ট করা যাবে। আর ঝামেলাহীনভাবে ট্রিপের রেকর্ড রাখতে ডিজিটাল চালান তো আছেই!

জিম সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে ও  রেজিস্ট্রেশন করতে ভিজিট করুন জিমের ওয়েবসাইট।  

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।