খুলনার আড়ংঘাটা থানা এলাকায় একটি সড়ক দুর্ঘটনার প্রেক্ষিতে দুই শ্রমিকের নামে মামলা হয়। সেই দায়েরকৃত মামলা প্রত্যাহার করে নেওয়ার দাবিতে খুলনাসহ ১৫ জেলায় চলমান ট্যাংক লরি ধর্মঘট অবশেষে প্রত্যাহার করে নেওয়া হয়েছে। গত ৯ অক্টোবর, বুধবার থেকে ট্যাংক লরি শ্রমিকরা এ ধর্মঘট পালন করে আসছিল। 

বৃহস্পতিবার খুলনার জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপারের সঙ্গে ট্যাংক লরি মালিক-শ্রমিক নেতাদের বৈঠক হয়। উক্ত বৈঠক শেষে শ্রমিকদের চলমান ধর্মঘট প্রত্যাহার করা হয়েছে। ফলে খুলনার খালিশপুর উপজেলার কাশিপুর এলাকায় জ্বালানি তেল সরবরাহ কোম্পানি পদ্মা, মেঘনা ও যমুনার ডিপো থেকে ট্যাংক লরিগুলোতে তেল ভর্তি শুরু হয়েছে। ধর্মঘটের কারণে সৃষ্ট হওয়া জ্বালানি সংকট নিরসনে এদিন বিশেষ ব্যবস্থায় ট্যাংক লরি দিয়ে ১৫ জেলায় জ্বালানি তেলও সরবরাহ করা হয়। 

ধর্মঘটের তৃতীয় দিন সকালে সার্কিট হাউসে মালিক ও শ্রমিকদের প্রতিনিধিরা প্রশাসনের সঙ্গে বৈঠকে বসেন। এতে উপস্থিত ছিলেন জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ হেলাল  হোসেন, পুলিশ সুপার এস এম শফিউল্লাহ, খুলনা মেট্রোপলিটন পুলিশের ডেপুটি পুলিশ কমিশনার মোল্লা জাহাঙ্গীর হোসেন, জ্বালানি তেল মালিক সংগঠনের নেতা শেখ ফরহাদ হোসেন, হাবিবুর রহমান, ট্যাংক লরি শ্রমিক নেতা মোঃ নূরুল ইসলাম ও আলী আজিম। 

উক্ত বৈঠকে দুই শ্রমিকের বিরুদ্ধে দায়েরকৃত মামলাটি আইনগতভাবে দ্রুত নিষ্পত্তির ব্যবস্থা নেওয়ার প্রতিশ্রুতি দেয় জেলা প্রশাসন। এ প্রতিশ্রুতির উপর ভিত্তি করে ট্যাংক লরি মালিক ও শ্রমিক নেতারা নিজেদের মধ্যেও বৈঠক করেন। বৈঠক শেষে ধর্মঘট প্রত্যাহারের ঘোষণা দেওয়া হয়। 

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।